৩২ নম্বরের বাড়ি ও সুধা সদন ॥ যে ইতিহাস সবার জানা দরকার।[পর্ব-৯]

মোফাজ্জল রনি

বিএনপি সাবেক মহাসচিব শেখ রেহানার লন্ডনের বাড়ি নিয়েও কল্পকাহিনী ফেঁদেছেন। এই কাহিনী যে কতটা তাঁর নিরেট মস্তিষ্ক প্রসূত, সেটা প্রমাণ তিনি নিজেই করতে পারেন। লন্ডনে তাঁর দলের নেতাকর্মীদের যে কাউকে জিজ্ঞেস করলেই বলে দেবেন লন্ডনে শেখ রেহানা কেমন সাধারণ জীবন যাপন করেন, তবে হ্যা সাধারণ জীবন যাপন করেও তিনি তাঁর সন্তান দের লেখাপড়া শিখিয়েছেন। তাঁর পুত্র দেলোয়ার পুত্রদের মতো দখলবাজ-মস্তান হয়নি। উচ্চতর ডিগ্রী নিয়ে এখন ব্রাসেলসে কর্মরত। মেয়ে টিউলিপ লন্ডনে এমপি হিসেবে নির্বাচিত। এখানেই খোন্দকার দেলোয়ারের সঙ্গে শেখ পরিবারের পার্থক্য। শেখ পরিবারে বিদ্যার চর্চা আছে, দেলোয়ারের উত্তর সরিদের তা নেই। খোন্দকার দেলোয়ারের নেত্রীর পরিবারের দিকে তাকালেও একই দৈন্য চোখে পড়ে। কাজেই তাঁদের ঈর্ষার কারণ কেবল বাড়ি নয়, যোগ্যতাও।

এবার আসা যাক সুধা সদন নামের বাড়িটি প্রসঙ্গে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বামী ড. ওয়াজেদ মিয়া আণবিক শক্তি কমিশনে যোগ দেন ১৯৬৩ সালের ৮ এপ্রিল। ১৯৭১ সালে তিনি ছিলেন আণবিক শক্তি কমিশনের প্রিন্সিপাল সায়েন্টিফিক অফিসার। শেখ হাসিনার সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয় ১৯৬৭ সালে। ঢাকাতে তাঁর কোন বাড়ি ছিল না