সিটি নির্বাচন পেছানোর দাবিতে অনশনরত ঢাবির ১০ শিক্ষার্থী অসুস্থ

আগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচন পেছানোর দাবিতে শুক্রবার দ্বিতীয় দিনের মতো আমরণ অনশন করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শিক্ষার্থীদের একটি গ্রুপ। এসময় ১০ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েন।

তারা হলেন-ঢাবি জগন্নাথ হল ইউনিয়নের সহ-সভাপতি উৎপল বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক কাজল দাস, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক প্রদীপ দাস, থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজের অপূর্ব চক্রবর্তী, সয়েল অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট বিভাগের অর্ক শাহা, ভবদেশ চন্দ্র রায় এবং জয়ন্ত বণীক, ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজম্যান্টের সবুজ কুমার, পালি অ্যান্ড বুদ্ধিস্ট স্টাডিজের সুকেশ দেবনাথ এবং ইসলামের ইতিহাস বিভাগের রবিউল আওয়াল রবি।

তাদের মধ্যে মারাত্মক অসুস্থ অবস্থায় অপূর্ব এবং অর্ককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে বিকাল ৫টার দিকে ঢাবির ভিসি অধ্যাপক আখতারুজ্জামান ও ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী শিক্ষার্থীদের সাথে সংহতি প্রকাশ করেন।

ঢাবি ভিসি বলেন, তাদের দাবি যৌক্তিক। ‘আমি নির্বাচন কমিশনকে ভোটের তারিখ পেছানোর আহ্বান জানাচ্ছি।’

এর আগে ঢাকার উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন পেছানোর দাবিতে বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে আমরণ অনশন শুরু করেন ঢাবির প্রায় ৪০ জন শিক্ষার্থী।

দুপুর ২টা ১০ মিনিটের দিকে জগন্নাথ হল ইউনিয়নের সহ-সভাপতি ও হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক উৎপল বিশ্বাস এবং জগন্নাথ হল ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক কাজল দাসের নেতৃত্বে রাজু ভাস্কর্যের সামনে প্ল্যাকার্ড হাতে অনশনে বসেন শিক্ষার্থীরা।

উল্লেখ্য, গত ২২ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) ও ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচন ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে।

তবে ওইদিন দেশব্যাপী উদযাপিত হতে যাওয়া হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম বড় ধর্মীয় উৎসব সরস্বতী পূজাকে কেন্দ্র করে নির্বাচন পেছানোর নির্দেশনা চেয়ে গত ৬ জানুয়ারি হাইকোর্টে রিট করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট অশোক কুমার ঘোষ। পরে গত ১৪ জানুয়ারি রিট সরাসরি খারিজ করে দেয় হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার রিট খারিজের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করা হয়েছে।